Home লাইফস্টাইল মনের মতো কাজ যেভাবে বাছবেন

মনের মতো কাজ যেভাবে বাছবেন

by shamim ahmed

আমাদের অনেকেই কর্মক্ষেত্রে যে কাজগুলো করি তা শুধু মাত্র অর্থ উপার্জনের জন্য করি। আর তাই প্রচুর অর্থ উপার্জন করেও আমরা সুখি হয়ে উঠতে পারি না। কিন্তু আমরা যদি আমাদের মনের পছন্দ মতো কাজ করি তাহলে আমরা অর্থের সাথে সাথে সুখটাও পেতে পারি।
আসুন জেনেনি মনের মতো কাজ কিভাবে বেঁছে নিবেন।

১. যে কাজে অজান্তেই সময় চলে যায়
প্রতিদিনের জীবনে আপনি নির্দিষ্ট কাজের তালিকায় সেঁটে যেতে পারেন। এমন কিছু কাজ আছে যাতে সব ভুলে নিবিষ্ট হয়ে পড়েন আপনি। নাওয়া-খাওয়া ভুলে কখন সময় যায় তা ঠাওর হয় না। বুঝতে হবে, এ ধরনের কাজে আপনি দারুণ মজা পান।

২. ছোটকালে যা পছন্দ ছিল
স্মৃতি হাতড়ে বের করুন, শৈশবে কোনো না কোনো কাজে জড়িয়ে পড়তে অস্থির হতেন। তখন অন্যকে খুশি করতে বা অর্থ উপার্জনের উদ্দেশ্য নিয়ে আপনি কাজগুলো করেননি। কেবল নির্ভেজাল আনন্দ পেতেই লুকিয়ে হলেও এসব করতেন। ওই সব কাজের মধ্যেই আপনার ভবিষ্যৎ জীবনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য লুকিয়ে থাকতে পারে। এক বিশেষজ্ঞের মতে, শিশু বয়সের সব পছন্দনীয় কাজের একটা তালিকা করা উচিত। এরপর সেখান থেকেই বর্তমান জীবনের প্রিয় কাজটা বাছাই করা যায়।
৩. যা করতে একেবারেই মন চায় না
বিশেষজ্ঞ স্ট্যান হেওয়ার্ড জানান, মনের মতো কাজ পেতে অপছন্দনীয় পেশাগুলোর তালিকাও প্রয়োজন। তাই যে কাজে মন টানে না তার তালিকা প্রস্তুত করে ফেলুন। এতে বেশ কয়েকটি ভালো কাজের সন্ধান মিলবে। সেখান থেকে খুঁজে নিন, কোনটিতে ঝাঁপ দিতে ব্যাপক সাহসী হয়ে উঠছে মন।
৪. জীবনী পড়ার অভ্যাস
বিখ্যাত মানুষের জীবনী পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন। তাঁদের ইচ্ছা, চাহিদা, ভালোবাসা কিংবা ঘৃণা সম্পর্কে জানুন। পেশা বাছাইয়ে সফল মানুষদের দৃষ্টিভঙ্গি পরিষ্কার বুঝতে পারবেন। তাঁদের উৎসাহ ও যুদ্ধজয়ের গল্পে নিজেরটার দিশা পাবেন।
৫. দক্ষতা, আবেগ ও অন্যান্য পথের তুলনা
প্রথমেই নিজের শক্তিমত্তা সম্পর্কে ধারণা নিন। কোন কাজগুলো আপনি ভালোমতো করতে পারেন, কোন কাজে দুর্বল এবং কোন কাজে আবেগী হয়ে পড়েন ইত্যাদি জানা জরুরি। এ ছাড়া বিস্তর সুযোগ ছড়িয়ে রয়েছে এমন ক্ষেত্রগুলো শনাক্ত করুন।
৬. পরামর্শে সাবধান
গুরুজন ও অভিজ্ঞদের পরামর্শ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই বলে ঢালাওভাবে উপদেশ নেওয়া উচিত নয়। যে যাই বলছেন, তা সাবধানে গ্রহণ করবেন। এর সঙ্গে নিজের চিন্তাভাবনা ও যুক্তির মিশেল ঘটাতে ভুলবেন না। অন্যের সৎ পরামর্শকে ঝালাই করে সর্বোৎকৃষ্টটা আপনিই বানিয়ে ফেলতে পারেন।

You may also like

Leave a Comment